লামইয়া চৌধুরি

সেদিন… [শেষ অংশ]

লেখিকাঃ লামইয়া চৌধুরি – হুম জানতাম।– খুব খারাপ লাগছে আমার।আমি সেদিন অবাক হয়ে তাকাতেই ধূসর বলে,দিগন্তের জন্য খারাপ লাগে না?– হ্যা লাগে মাঝে মাঝে। ভাইয়া আমার সব আবদার পূরণ করতো।অনেক ফ্র্যান্ডলি সম্পর্ক ছিল। আমিও খুব ভালোবাসি দিগন্ত ভাইয়াকে কিন্তু সেদিনের চড়ের কথা মনে হলে ছোটবেলার মতো ভাইয়ার চুল টেনে ছিঁড়ে ফেলতে ইচ্ছে হয়।ধূসর আমার কথা শুনে হাঁটা থামিয়ে বলে,রিয়েলি ঝুম?– ... Read More »

সেদিন… [চতুর্থ অংশ]

লেখিকাঃ লামইয়া চৌধুরি সকালে ধূসর হসপিটালে যাওয়ার আগে বলে যায় যেন আমি আবার দূপুরে যাইআমি সেদিন ধূসরকে বলি,আজকে তো আমাকে যেতেই হবে।ধূসর চলে যেতে যেতে বলে,শুধু আজকে না প্রতিদিন যেতে হবে তোমাকে।– আমি কি না করেছি নাকি? তবে আজ তো মরে গেলেও যাব আমিআপনার স্বাতিকে আমার দেখার আছে।ধূসর সেদিন দরজা থেকে ফিরে এসে আমাকে বলে,– কানের নিচে দিব একটা। আর যদি ... Read More »

সেদিন… [তৃতীয় অংশ]

লেখিকাঃ লামইয়া চৌধুরি সেদিন রাতে আমি আর ঘুমাইনি। সারারাত পুরো বাড়ির এক কোণা থেকে অন্য কোণায় হেঁটেছি আর ভেবে ভেবে মরেছি। ভোরের দিকে রুমে এসে ঘুমন্ত ধূসরের দিকে ভ্রু কুঁচকিয়ে তাকিয়ে ছিলাম আর বোঝার চেষ্টা করছিলাম সে এমন করছে কেনো। হঠাৎ ধূসরের ঘুৃম ভেঙে যায়।– কি হলো এমন করে কি দেখছো?– কিছু না।– তাহলে এভাবে কোমড়ে হাত দিয়ে গালে একটা আঙুল ... Read More »

সেদিন… [দ্বিতীয় অংশ]

লেখিকাঃ লামইয়া চৌধুরি ধূসর সেদিন বলেছিলো, এই পথ যদি না শেষ হয় তবে আপনার ভাবি অস্বস্তিতে হার্ট ফেইলই করে ফেলতো।– ভাবি হার্ট ফেল করলেও কোনো সমস্যা নেই কারণ ভাবির হার্টের ডাক্তার তুমি আছোই তো।– তোর ভাবির চিকিৎসা তুই করিস।– ভাইয়া পড়তে পড়তে তোমার মাথা নষ্ট হয়ে গেছে। আমি একজন আর্কিটেকচার হয়ে কীভাবে হার্টের চিকিৎসা করবো। আমি তে ভাবির জন্য বলেই ... Read More »

সেদিন… [প্রথম অংশ]

লেখিকাঃ লামইয়া চৌধুরি আমি ঝুম। প্রিয়তমের কাছে যার নাম একরাশ বিরক্তি। হুম ধূসর । ধূসর আমার প্রিয়তম ব্যক্তির নাম। যাকে ভালোবেসে সমুদ্রের উত্তাল ঢেউকে পাড় করে, নিজের দেশকে ছেড়ে,পরিবারকে ছেড়ে, আজ আমি এক অন্য মহাদেশে। তাকে ভালোবেসে, একরাশ স্বপ্ন নিয়ে তার সাথে আমেরিকায় চলে আসি। কিন্তু বুঝতে পারিনি আসলে সে আমাকে বোঝা হিসেবে এখানে এনেছে, ভালোবেসে নয়। এখানে আসার পর ... Read More »