রওনাক ইফাত

গ্যাংস্টার [অন্তিম পর্ব]

লেখাঃ রওনাক ইফাত জিনিয়া আমিঃ রাতুল আমি স্বীকার করছি প্রথমে আমি বাচ্চা চাইনি কিন্তু… এটা কিছুতেই হতে পারেনা।আল্লাহ্ এত বড় শাস্তি আমায় দিতে পারেনা। রাতুলঃ নীলা আমার কথাটাতো শুনবে আগে নাকি?দেখ আমাদের বাচ্চারা বেঁচে আছে।আল্লাহ্ নিজে হাতে আমাদের বাচ্চাদের বাঁচিয়েছে তবে চাপ লাগার জন্য ওরা একটু অসুস্থ আরকি তাই ওদের আলাদা রাখা হয়েছে। আমিঃ তুমি সত্যি বলছো?আমি ওদের দেখতে চাই ... Read More »

গ্যাংস্টার [১০ম পর্ব]

লেখাঃ রওনাক ইফাত জিনিয়া .রাতুলঃ তুমি ঘুমাওনি?সরি আমি… আমিঃ আজ আমাকে কিছু সত্যি কথা বলবেন? রাতুলঃ বল কি জানতে চাও? আমিঃ বসেন বলছি।সত্যিই কি ভালবাসেন আমায়? রাতুলঃ হুম।নিজের থেকেও বেশি। আমিঃ কিন্তু আমিতো আপনাকে একটুও ভালবাসিনা আর কখনও ভালবাসতে পারব কিনা তাও জানিনা এসব জেনেও কি আপনি আমার সাথে থাকতে চান? রাতুলঃ হুম চাই।কারন আমি জানি একদিন তুমি আমাকে ঠিক ... Read More »

কলঙ্কিনী [শেষ পর্ব]

লেখা: রওনাক ইফাত জিনিয়া আজ পাঁচমাস কম ছয়বছর পর মানুষটাকে আমি দেখলাম।নিজের চোখকে বিশ্বাস করতে পারছিলাম না যে আমি সত্যিই তাকে দেখছি।চেহারায় আর আগের সেই সৌন্দর্য্য নেই অনেকটাই সাদামাটা আজ সে।সময়ের সাথে সাথে বয়সেরও একটা ছাপ পড়েছে চেহারাটাতে।তাকে দেখে কি বলব আমি ঠিক বুঝতে পারছিলাম না যেন বোবা হয়ে গিয়েছিলাম আমি।এতগুলো বছর পর আজ কেন সে এখানে এসেছে?সে কি আমার ... Read More »

গ্যাংস্টার [৯ম পর্ব]

লেখাঃ রওনাক ইফাত জিনিয়া রাতুলঃ নীলা তুমি যা ভাবছো তেমন কিছু নেই আমাদের মাঝে।আমি দিয়াকে ছোটবোনের মতই দেখি। আমিঃ হা হা হা।আমার কাছে এত নাটকের কোন দরকার নেই আর দয়াকরে দিয়াকে বোন বলে অন্তত ভাইবোনের সম্পর্কটাকে কুলষিত করবেন না।তার থেকে সরাসরি বললেই পারেন দিয়া আপনার প্রেমিকা।তাইতো এত সুন্দর করে তখন চোখের পানি মুছা হচ্ছিল। রাতুলঃ আমি তোমাকে কিভাবে যে বিশ্বাস ... Read More »

অভিশপ্ত ভালোবাসা [শেষ অংশ]

রওনাক ইফাত জিনিয়া :আজ শোভন কল দিয়েছিলো বললো আমার সাথে কি যেন কথা বলবে তাই দেখা করতে চাইলো।–তুমি কি বলেছো?:কিছুনা কল কেটে দিয়েছি।–ভালো করেছো ওর সাথে কথা বলার বা দেখা করার কোন দরকারই নেই।..রাতে ঘুম আসছেনা বুঝতে পারছিনা আমি কি করবো?শোভনের সাথে দেখা করবো নাকি করবোনা?পাশ ফিরে দেখি আকাশ ঘুমাচ্ছে।আমার জন্য আকাশকে এভাবে কষ্ট পেতে দেখতে একদম ভালো লাগছেনা।এসব ভাবতে ... Read More »

গ্যাংস্টার [৮ম পর্ব]

লেখাঃ রওনাক ইফাত জিনিয়া আঁকাবাঁকা মেঠো পথের দুপাশে গাছপালায় ভরা তার মাঝখান দিয়ে গাড়ীটা যাচ্ছে।কোন কথা না বলে পুরো রাস্তাটা আমি উপভোগ করেছি।প্রায় তিনঘন্টা পর আমরা গ্রামের বাড়িতে পৌঁছলাম।বাড়িটা বেশ বড় আর অনেকগুলো ঘর সারিবদ্ধভাবে অবস্থিত।দেখলেই বুঝা যায় একে অপরের সাথে বেশ মিল রয়েছে তাদের।গিয়ে দেখি রাতুলের মা শুয়ে আছে।আমরা যতটা ভেবেছিলাম তেমনকিছু হয়নি হালকা ব্যাথা পেয়েছেন। আসলে রাতুলের কাকা ... Read More »

কলঙ্কিনী [৯ম পর্ব]

লেখা: রওনাক ইফাত জিনিয়া আজ দুমাস হল আমি বাবার বাড়িতে আছি।হ্যাঁ সেদিন মুখ খুলেছিলাম বাবার বাড়িতে আসার কথা বলার জন্যেই।সুমনের বাবা আমাকে থাকার জন্য জোর করলেও তার পরিবারের লোকজনের ব্যবহারে ওখানে টিকে থাকাটা খুব কষ্টের হয়ে দাঁড়িয়ে ছিল আমার জন্য তাই চলে আসা।আজও সুমনের কোন খুঁজ জানিনা।এতদিন সুমনের সাথে আমার সম্পর্ক নিয়ে আমার পরিবারকে মিথ্যে ভাল থাকার কাহিনী শুনালেও এখন ... Read More »

অভিশপ্ত ভালোবাসা [২য় অংশ]

রওনাক ইফাত জিনিয়া .কখনো কল্পনাও করিনি শোভন এমন একটা কাজ করবে ওইতো আমাকে ভালোবাসে বলে দাবী করতো তবে কিভাবে পারলো এমন একটা কাজ করতে?কিভাবে পারলো এসব মিথ্যে ছবিগুলো বানাতে?কিছু ভাবতে পারছিনা মাথা ঘুরছে।আকাশকে কি বলবো বুঝতে পারছিনা তাই চুপ করে বসে রইলাম।হঠাৎ আকাশ বলে উঠলো-:চল নীরা পুকুর পাড়ে যাই ঘাটে বসে চাঁদ দেখবো।–না আকাশ বাবা জানলে রাগ করবে আর আমার ... Read More »

গ্যাংস্টার [৭ম পর্ব]

লেখাঃ রওনাক ইফাত জিনিয়া রাতুল ফ্লোরে পড়ে থাকা উড়নাটা তুলে আমাকে ঢেকে দিল। রাতুলঃ আমি তোমাকে ভালবেসেছি তোমার শরীর নয় যদি শরীরকেই ভালবাসতাম তবে অনেকদিন আগেই নিজের ইচ্ছে পূরণ করে নিতে পারতাম তার জন্য বিয়ের কোন দরকার ছিলনা।ঠিক আছে এ বিয়ে হবেনা। আমিঃ বাহ্ খুব ভালতো।আপনি কি ভেবেছেন আমি আপনার চালাকি বুঝতে পারিনি? রাতুলঃ চালাকি?কিসের চালাকি? আমিঃ ইতিমধ্যে পুরো পৃথিবী ... Read More »

কলঙ্কিনী [৮ম পর্ব]

লেখা: রওনাক ইফাত জিনিয়া –তুমি সত্যিই জানোনা তুমি কিভাবে আমাদের মাথা কেটেছ নাকি জেনেও না জানার ভান করছো কোনটা? –আজব তো আমি অভিনয় কেন করব আর মিথ্যে বলে আমার কি লাভ? –মিথ্যে বলে যদি তোমাদের লাভ নাই হয় তবে তোমরা মিথ্যে কেন বলেছ আমাদের?কেন সত্যটা গোপন রেখেছ? –কি মিথ্যে বলেছি?আমার জানা মতে আমি বা আমার পরিবার আপনাদেরকে কোন মিথ্যে বলিনি। ... Read More »